sasthoseba.com

First Health News site in Bangladesh

আপনি কি জানেন প্রতিদিন চুল ধুলে কি হয় ?

আপনি কি প্রত্যেক দিন চুল জল দিয়ে ধুয়ে থাকেন? তাহলে হয়তো আপনি জানেন না চুল রোজ ধুলে কী কী সমস্যা হতে পারে। চুলের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতেও চুল পরিস্কার রাখার জন্য রোজ রোজ ধোওয়ার দরকার নেই। চুলের আকার, গঠন এবং ধরণ দেখে বিশেষজ্ঞ বা স্টাইলিশরা আপনাকে পরামর্শ দিতে পারেন কতদিন অন্তর আপনার চুল ধোওয়া উচিত। কতদিন পর্যন্ত চুলে পানি না লাগিয়ে আপনি থাকতে পারেন। আমরা এই প্রতিবেদনে মূলত ৭টি কারণের ক্ষেত্রেই দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি।

১. তাপের সংস্পর্ষে কম আসবে : প্রত্যেকদিন চান করে কাজে বেরনোর সময় যদি আপনি মাথা ধোন তাহলে তা শুকনো করার জন্য হেয়ার ড্রায়ারের ব্যবহার করতেই হয়। কারণ ভিজে চুল নিয়ে তো আর কাজের জায়গায় যাওয়া যায় না। আর এর ফলেই চুলের গোড়া আলগা হয়ে যায়, স্প্লিটএন্ড দেখা যায়, এমনকী চুল পড়াও শুরু হয়ে যায়।

২. চুলের রং বেশিদিন থাকে : আপনার চুলে যদি রং করানো থাকে, তাহলে চুলে রোজ জল লাগাতে থাকলে অল্প সময়ের মধ্যেই চুলের রং হাল্কা হতে শুরু করে।

৩. চুল তৈলাক্ত হয় : অনেকের ধারণা, চুল যদি রোজ ভাল করে ধোওয়া না যায়, তাহলে চুলে প্রাকৃতিক তেলের উৎপাদন হয়। যদিও এই ধারণা সম্পূর্ণ ভুল। অনেক সময় আমাদের মাথায় যে তেলচিটে বিষয় দেখা যায় তা আসলে যে সমস্ত দ্রব্য আমরা চুলের স্টাইলিংয়ের জন্য ব্যবহার করি তার ফলে হয়ে থাকে। আবার কখনও শ্যাম্পু বা সিরামের জন্যও হয়ে থাকে।

৪. প্রাকৃতিক তেল ধুয়ে যায় : রোজ রোজ চুলে পানি দিলে আমাদের মাথার ত্বকে যে প্রাকৃতিক তেল উপস্থিত রয়েছে তা ধুয়ে যায়। এই তেল আমাদের মাথার ত্বককে ময়শ্চারাইজ করে এবং চুলে জেল্লা এনে দেয়। তাই রোজ চুল ধোয়া এড়িয়ে চলুন।

৫. স্ট্রেটনিং বা কার্লিং : গুচ্ছ গুচ্ছ টাকা দিয়ে একদিনের পার্টির জন্য আমরা চুলে আয়রন করিয়ে স্ট্রেট হেয়ার লুক গ্রহণ করি বা কার্ল। বিউটিপার্লার থেকে বলেই দেয় চুলে পানি যতক্ষণ না দিচ্ছেন ততদিন আপনার কার্ল বা স্ট্রেটনিং থাকবে। দিনের পর দিন সম্ভব না হলেও দু-তিন দিন তো অনায়াসেই আমরা এই স্টাইল রাখতে পারি। পারমানেন্ট স্ট্রেটনিং বা কার্লিংয়ের ক্ষেত্রেও রোজ রোজ চুল ধোওয়ার প্রভাব পড়তে পারে।

৬. চুল ধোয়ার পরের দিন : সাধারণত লক্ষ করলে বুঝতে পারবেন যেদিন চুল ধোবেন তার পরের দিন চুলের ধরণটা সবচেয়ে ভাল লাগে। সেদিনটা অনায়াসে আপনি চুল ধোওয়া এড়িয়ে যেতে পারেন।

৭. কেমিক্যালের কম ব্যবহার : চুল রোজ না দেওয়া মানেই নয় শ্যাম্পু করা নয় শুধু কনডিশনার লাগানো, নয়তো নিদেন পক্ষে চুলের জট ছাড়াতে হেয়ার সলিউশন। বলা বাহুল্য এই সবেতে কেমিক্যালের পরিমাণ অনেক বেশি থাকে। যা চুলকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। তাই চুল ধোওয়া কমলে এই ধরণের কেমিক্যাল দ্রব্যের ব্যবহারও কমবে। ফলে চুল কম ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

sasthoseba.com © 2014 Sasthoseba