sasthoseba.com

First Health News site in Bangladesh

সুন্দরী তরুণী প্রেমিককে স্তনপান ছাড়লেন করাতেই চাকরি!(ছবিসহ)

‘‘তৃষ্ণা আমার বক্ষ জুড়ে/আমি বৃষ্টিবিহীন বৈশাখী দিন/সন্তাপে প্রাণ যায় যে পুড়ে/ ঝড় উঠেছে তপ্ত হাওয়ায় হাওয়ায়’’ মনের গভীরে আকাঙ্খার ঝড় উঠলে কি সহজে থামানো যায়? উত্তরটা অবশ্যই বড় হরফেই হবে ‘না’

নারীর বুকে যখন বারবার এরকমই টর্নেডো ওঠে তখন লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় তাঁর মনন৷দাবিয়ে রাখতে চাইলেও সে অস্ফুটে বলে ওঠে ‘‘ও যে মানে না মানা’’৷ নারীর শারীরিক চাহিদা পুরুষের থেকেও শতগুণ বেশি৷ আর সেখানে যদি একটা প্রবল মনের সংযোগ থেকে যায়, তাহলে তা ঐরাবতের মতোই গুঁড়িয়ে দিতে চায় সব না-পাওয়ার দেওয়াল৷

‘অ্যাডাল্ট ব্রেস্টফিডিং রিলেশনশিপ’ (এবিআর) ও অনেকটা নারীর সেই ইচ্ছার মতোই৷ যা নিয়ে এতক্ষণ বলা হচ্ছিল৷ নারীর পুরুষকে স্তনপান করানোর ব্যাখা অনেকেই চোখ বুজে ‘প্রবল যৌনতার’ মোড়কেই বেঁধে ফেলতে চাইবে৷ কিন্তু গভীরে গেলে এর এক আলাদা অর্থ রয়েছে৷ যে নারী এখনই মা হতে চাইছে না, অথচ সে তার বুকের তৃষ্ণা মেটাতে চায় অন্যভাবে, সেই বেছে নেয় এবিআর৷ এই সম্পর্ক গড়ে তোলার জন্যও অনেক সাইট রয়েছে৷ ডেটিং সাইটেও কথা বলতে বলতে কেউ এই ‘খোয়াইশ’ জানিয়ে দেয় অপর প্রান্তের মানুষটিকে৷

efegeg
এই সম্পর্কের এক অসাধারণ টান রয়েছে৷ নেহাত ভালোবাসার বাইরে এই টানকেই ‘ম্যাজিকাল বন্ডিং’ বলে অনেকে৷ যেমনটা অনুভব করে ফ্লোরিডার জেনিফার মুলফোর্ড৷ সে এই সম্পর্কে এতটাই ‘লয়্যাল’ যে, নিজের চাকরিটাই ছেড়ে দিলেন শুধু বয়ফ্রেন্ড ব্র্যাড লেসনকে স্তনপান করানোর জন্য৷ জেনিফার কিন্তু সন্তান প্রসব করেননি৷ বছর ৩৬-এর সঙ্গীই তাঁর এখন ভীষণ কাছের৷ সেই তাঁর সবকিছু৷ যাকে সঁপে দেওয়া যায় ভালোবেসেই৷

জেনিফার বলছেন,‘‘ এবিআর-এর ব্যাপারে শুনেই আমার মনের মধ্যে উতালপাথাল হয়ে গিয়েছিল৷ আমি এই আবেগের সম্পর্কে জডা়তে চেয়েছিলাম কারোর সঙ্গে৷ আমি ডেটিং সাইট ও এবিআর ফোরামে মেসেজও করি,বিজ্ঞাপনও দিয়েছিলাম৷’’জেনিফার এই ব্যাপারে জানিয়েছেন যে, দু’ঘণ্টা অন্তর ‘ড্রাই-ফিড’ করান তিনি৷ তাঁর মনে হয় যেন কোনও শিশুকেই স্তনপান করাচ্ছেন৷ এমনকী তাঁরা অ্যালার্ম সেট করেও এই কাজ করেন৷ রাতের অন্ধকারে এই স্বাদের তৃপ্তিই আলাদা বলেও মত জেনিফারের৷প্রকাশ্যে এই স্তনপানের বিরোধী জেনিফার৷ তাঁর সাফ জবাব, ‘‘ আমি কোনওদিনই প্রকাশ্যে এই কাজ করব না৷ কারণ এটা আমাদের অত্যন্ত ব্যক্তিগত বিষয়৷ লোকচক্ষুর আড়ালে গোপনেই আমি এই আনন্দ উপভোগ করি৷ এই কারণেই চাকরিটাও ছেড়েছি৷’’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

sasthoseba.com © 2014 Sasthoseba